সমস্যা এবং সমাধান

মন ভালো করার উপায়, এসএমএস, স্ট্যাটাস, ছন্দ ও বই

মানুষের মন অক্টোপাশের মত । যে কোন মুহূর্তে মন পরিবর্তন হতে পারে ।একঘেয়েমি মনকে চাইলেও ভালো রাখা যায় না ।ভালো-মন্দ একটি মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ।মানুষের আচার-ব্যবহার প্রকৃতির নিয়তি এবং দুই হাতের কর্মফল মানুষের মনকে খারাপ করে দেয় । খারাপ কোনো কিছুই মানুষের কাম্য নয়, কিন্তু জীবনের কিছু কিছু মুহুর্ত আসে যখন মানুষের মন নিতান্তই খারাপ হয়ে যায়। যেমন গার্লফ্রেন্ডের বা বয় ফ্রেন্ডের সাথে খারাপ আচরণ, পরিবারের লোকের সাথে ঝগরা, অন্যের মুখে নিজের খারাপ সমালোচনা শোনা, চাকরি না পাওয়া এবং সর্বোপরি নিজের গুরুত্ব উপলব্ধি না করা ।

সুতরাং, যে কোন কারনেই মন খারাপ হয়ে থাকলে সেই খারাপ অবস্থা দীর্ঘস্থায়ী না করে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মনকে প্রফুল্ল করে তোলা। তবে চাইলেই তো আর মনকে প্রফুল্ল করা যায় না। আমরা এখানে মন ভালো করার বা প্রফুল্ল রাখার কিছু ছন্দ, এস এম এ্‌ স্ট্যাটাস, বই এবং কিছু পিকচার সংযুক্ত করেছি- যেগুলো যে গুলো পড়লে মানুষের মন ভালো হয়ে যায়। কাজেই আপনি যদি মন খারাপের পিরিয়ডে অতিবাহিত হতে থাকেন, তবে নিচের কথাগুলো স্টেপগুলো অবলম্বন পূর্বক অনায়াসে আপনার মন ভালো হয়ে যাবে বলে আমরা ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি ।সুতরাং মন ভালো করার আগে মন খারাপ হওয়ার উৎস গুলো ভালোভাবে অবলম্বন করা জরুরী।

মন খারাপ হওয়ার কারণসমূহ-

  • গার্লফ্রেন্ডের বা বয় ফ্রেন্ডের সাথে খারাপ আচরণ,অভিমান, ব্রেকআপ ইত্যাদি । 
  • পরিবারের লোকের সাথে ঝগরা- মা-বাবা বড় ভাইয়ের গালিগালাজ
  • চাকরি না পাওয়া
  • অন্যের মুখে নিজের খারাপ সমালোচনা শোনা
  • নিজের গুরুত্ব উপলব্ধি না করা
  • নিজেকে দুর্বল অথবা হেয় প্রতিপন্ন করা ইত্তাদি।

এমন অনেক লোক রয়েছে যারা 100 লোকের দ্বারা প্রভাবিত হয়েও অপমান বোধ করেন না আবার অনেকেই রয়েছে- যারা অন্যের দ্বারা একটি ফুলের আছর পরলে মন খারাপ করে রাখে ।যেমন আমার এক বন্ধু রয়েছে তাকে 100 জুতা মারলেও সে কখনো অপমান বোধ করবে না। আবার এমন বন্ধু রয়েছে যাকে এক কাপ চা না খাওয়ালেও মন খারাপ করে বসে। 

সুতরাং যে কোন কারণে মন খারাপ হক না কেন ,নিচের উপায় বা কৌশলগুলো অবলম্বন করলে বা এসএমএস ছন্দ বা এসএমএস গুলো অন্যের মাঝে শেয়ার করলে আপনার মনের খারাপ অবস্থা দূর হতে পারে।

মন ভালো করার উপায়-

  1. ভালো বন্ধুদের সাথে 1 ঘন্টা ঘুরে আসুন- আপনারা জানেন যে একজন ভালো বন্ধু একশটা লাইব্রেরির সমান।আপনার মনের অবস্থা প্রিয় বন্ধুর সাথে ভাগাভাগি করে নিলে মন কিছুটা হলেও হালকা হয়ে যাবে
  2. মন খুলে হাসুন-
  3. আকাশের দিকে আকাশের বিশালতা অবলম্বন করুন এবং মনকে সান্ত্বনা দেন
  4. নিজেকে ব্যস্ত রাখুন এবং
  5. মোটিভেশনাল বই পড়ুন-  

বইয়ের নামঃ  The power of positive thinking mon valo korar boi

লেখকঃ  ডক্টর নরম্যান ভিন্সেন্ট পিল 

বঙ্গানুবাদঃ লিওনার্দো স্বপন গোমেজ

ক্যাটাগরিঃ আত্ম-উন্নয়ন ও মেডিটেশন

 প্রথম প্রকাশঃ একুশে বইমেলা 2014

আপনি জেনে অবাক হবেন যে, বর্তমানে 25 মিলিয়ন এর ও বেশি এই বইয়ের কপি বিক্রি হয়েছে। এই বইটি অবলম্বন করে মন ভালো করার উপায় খোঁজ করার নিমিত্তে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করুন-  যা মন ভালো করার ওষুধ হতে পারে।

>>নিজের উপর আস্থা রাখুন

>> শান্তিপূর্ণ মন, শক্তি উৎপাদন করে -তাই মনকে সর্বদা শান্তিপূর্ণ রাখার চেষ্টা করুন।

>> কিভাবে নিয়মিত শক্তি পাওয়া যায়-তা খোঁজ করুন

>> প্রার্থনার শক্তি পরীক্ষা করে দেখুন

>> কিভাবে নিজের সুখ নিজেই তৈরি করতে নিজের যা আছে তাকেই প্রাধান্য দিন

>>আকস্মিক ক্রোধ ও বিরক্ত থেকে বিরত হন

>>আমি পরাজয় বিশ্বাসী নই- মাইন্ড কে শিখিয়ে নিন 

>> উদ্বিগ্ন  হওয়ার অভ্যাস থেকে মুক্ত হন

>> ব্যক্তিগত সমাধানের শক্তি বাড়িয়ে তুলুন

>> কিভাবে মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যায় তা  খুঁজুন 

>>অন্ত প্রবাহী নতুন সন্তান পাতায় সেট করুন

>> জীবনীশক্তি অবসন্ন হওয়ার আগেই জীবন গঠন করে নিন

>> সহজ শক্তি লাভের জন্য শিথিল হওয়া প্রয়োজন

>> হৃদ শুলের ব্যবস্থাপত্র সতেজ রাখুন 

>> শক্তি থেকে উচ্চতর শক্তিস্তর জাগিয়ে তুলুন

সর্বশেষ আমরা আশা করছি যে, আপনাদের মনকে উপরের কথাগুলো  দিয়ে নিশ্চয়ই ভালো করতে পেরেছেন।সৃষ্টিকর্তা মানুষকে সৃষ্টি করেছেন ক্ষণিক সময়ের জন্য । তাই নিজের নামে বরাদ্দকৃত সময়টুকু যদি আপনি খারাপ ভাবে চালিয়ে দে্‌ন, তবে তো আপনার নিজেরই  ক্ষতি,  তাই না  ? আপনাদের জীবনকালীন পরিসংখ্যান আনন্দের পাল্লায় ভারী হয়ে উঠুক, এই প্রত্যাশায় আজ বিদায় নিচ্ছি।

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button