অনলাইনে টাকা আয়

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে টাকা আয় করার উপায়

প্রিয় পাঠক, বন্ধুরা আশা করি ভাল আছেন। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে মোবাইলে ইনকাম করা যায় আপনি জানেন কি? কিভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করে টাকা আয় করা যায় মোবাইল দিয়ে? অবাক হবার কিছু নেই সময়ের সাথে অনলাইনে ইনকাম সোর্স বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আপনার হাতে যদি একটি স্মার্টফোন থাকে তবে আপনি অনায়াসে প্রতি মাসে সম্মানজনক আয় করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে সঠিক উপায় গুলো সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। আসো তাহলে জেনে নেই মোবাইল দিয়ে কিভাবে টাকা আয় করা যায়।

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার উপায়

আপনার কাছে কি কল্পনা মনে হয় শুধুমাত্র একটি স্মার্টফোন আপনার কাছে থাকলেই লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। আসলে এটি যুগান্তকারী সত্য। অবাক হবেন না একটু নড়েচড়ে বসুন পুরো পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়ুন। আমরা মোবাইলের মাধ্যমে ইনকাম করার জনপ্রিয় কিছু সোর্স নিয়ে আলোচনা করব।

ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে আয়

আপনার হাতে যদি একটি স্মার্ট ফোন থাকে তবে সারা বিশ্বের ইউটিউবারদের মতো লক্ষ টাকা আয় করার প্রধান অস্ত্র আপনার হাতে। স্মার্টফোনটি ব্যবহার করে ভিডিও তৈরি করুন এডিট করুন এবং ইউটিউবে আপলোড করুন। ধৈর্যের সাথে লেগে থাকুন অনতিবিলম্বে সফল হবেন এবং 10 হাজার থেকে শুরু করে লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন।

বর্তমানে স্মার্টফোন এর মাধ্যমেই বেশিরভাগ ইউটিউবার তাদের চ্যানেল পরিচালনা করে থাকে। অতএব আপনিও আপনার হাতে থাকা ফোনটি ব্যবহার করে youtube থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

কন্টেন রাইটিং (ব্লগ) লিখে আয়

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আপনি যদি লেখালেখিতে পারদর্শী হয়ে থাকেন তবে আপনি একধাপ এগিয়ে আছেন। আপনার প্রতিভা এবং মোবাইল ফোনটির মাধ্যমে বিভিন্ন জনপ্রিয় ওয়েবসাইটে লেখা পাঠিয়েও ইনকাম করতে পারেনা।

আর হ্যাঁ আপনি চাইলে নিজেই ডোমেন হোস্টিং ক্রয়ের মাধ্যমে মোবাইলেই আর্টিকেল বা কনটেন্ট লিখে ওয়েবসাইট মনিটাইজ করার মাধ্যমে লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন।

বিটকয়েন মাইনিং করে টাকা আয়

বর্তমানে উন্নত বিশ্বের মত বাংলাদেশ বিটকয়েনের কাজ চলছে। অসংখ্য বেকার ও শিক্ষিত মানুষেরা মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে এ সকল মাইনিং অ্যাপস এ কাজ করে অনেক টাকা ইনকাম করছেন। আপনি আপনার মোবাইলের মাধ্যমে ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউবে ভিডিও দেখে এ সকল অ্যাপ সম্পর্কে জেনে জয়েন করে কাজ করতে পারেন।

মোবাইলে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয়

বর্তমান সময়ে যাদের কম্পিউটার নেই তবে একটি স্মার্টফোন আছে তবে আপনার হতাশার কিছু নেই। এটির মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং এর বিভিন্ন জনপ্রিয় দিক নিয়ে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। ফ্রিল্যান্সিং মানে কোন নির্দিষ্ট কাজ নয় আপনার পছন্দ ও অভিজ্ঞতা বলে ফ্রিল্যান্সিং এর বিভিন্ন দিক নিয়ে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারেন।

বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রের মানুষ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং করে থাকেন। আর এটি সহজ অনেক কারণ মোবাইল সর্বত্র বহন করে নেয়া যায়।

ছবি তুলে টাকা আয়

আপনার হাতে যদি একটি আধুনিক মানের এন্ড্রয়েড ফোন থাকে তবে প্রকৃতি সহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটের শর্ত অনুযায়ী ছবি তুলে জমা দিলেও টাকা আয় করতে পারবেন। বিভিন্ন কপিরাইট ফ্রি ইমেজ ওয়েবসাইট গুলো ছবি সংগ্রহ করে টাকার বিনিময়ে সে সকল ওয়েবসাইটের সাথে ইমেইলের মাধ্যমে কথা বলে জয়েন করুন।

আপনি চাইলে নিজেও ফেসবুকসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইট কিংবা সোশ্যাল মিডিয়াতে নিয়মিত ছবি পোস্ট করে পেজ গ্রুপ কিংবা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আর্ন করতে পারেন।

মোবাইলের ভিডিও তৈরি করে ইনকাম

বিভিন্ন প্রকৃতির দৃশ্য সহ অনেক প্রতিষ্ঠান আপনার মোবাইলের মাধ্যমে করা ভিডিও টাকার বিনিময়ে ক্রয় করে। আজই খোজ নিন এবং মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও করে সে সকল ভিডিও অফিসিয়াল নিয়মে জমা দিয়ে ইনকাম করুন।

এটি খুব একটা জটিল কাজ নয় সবচেয়ে সহজ ব্যাপার। তাই আমরা আপনাকে সাজেস্ট করব বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে সকল ব্যাপারে প্রচুর পরিমাণে তথ্য সংগ্রহ করে কাজ শুরু করে দিন।

অনলাইনে টিউশনি করিয়ে আয়

করোনা কালীন সময়ে আপনারা হয়তো লক্ষ্য করেছেন ছাত্র-ছাত্রীরা বেশিরভাগ সময় স্মার্টফোনের মাধ্যমে ক্লাস করেছে। যদি আপনার নজরে এমন দৃশ্য পড়ে থাকে তবে আপনাকে সহজেই বলব এভাবে এখনো টিউশনি করিও আয় করা যায়।

আপনি দেশের যেকোনো প্রান্তেই থাকুন না কেন একটি গ্রুপ কল কিংবা ভিডিও স্ট্রিমিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে স্টুডেন্টদের সাথে যোগাযোগ করে টিউশনি করানোর মাধ্যমে আয় করতে পারেন। অনেকেই বিভিন্ন বিষয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করে অথবা অনলাইনে লাভ স্ট্রিম করে ক্লাস নিচ্ছেন।

ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে ইনকাম

আপনার যদি স্মার্ট ফোন থাকে এবং একটি ফেসবুক একাউন্ট থাকে তবে ফেসবুক দিবে আপনাকে টাকা। শুধুমাত্র আপনার অ্যাকাউন্ট চালু রাখলেই টাকা আসবে না নিয়মমাফিক কাজ করতে হবে।

এর মধ্যে উত্তম উদাহরণ ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম। আপনার অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করে একটি প্রফেশনাল মোডের ফেসবুক পেজ তৈরি করুন এবং আপনি কি ধরনের প্রোডাক্ট সেল করবেন তা নির্বাচন করুন এবং প্রচার করুন।

ফেসবুক পেজ মনিটাইজ করে ইনকাম

আপনি যদি ভিডিও তৈরি করতে পারদর্শী হন। তাহলে আজই ফেসবুকে একটি পেজ তৈরি করুন এবং নিয়মিত আকর্ষণীয় ভিডিও আপলোড করুন। সর্বশেষ ১০ হাজার ফলোয়ার ও ৬ লক্ষ মিনিট ওয়াচ টাইম পূরণ হলেই আপনার পেজটি ইনকাম করার জন্য প্রস্তুত হবে।

আর এটি ব্যবহার করে সর্বনিম্ন ১০ হাজার থেকে শুরু করে লক্ষ টাকা আয় করার অফার করে ফেসবুক। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অসংখ্য দেশ লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে।

ফেসবুক রিলস ভিডিও থেকে ইনকাম

সম্প্রতি tiktok ইউটিউবের সাথে প্রতিযোগিতা করে ফেসবুক নিয়ে এসেছে শর্ট ভিডিও তৈরি ও আপলোড করার মাধ্যমে লক্ষ টাকা আয় করার সুযোগ। এটি ফেসবুকের ভাষায় রিলস ভিডিও বলা হয়। বিশ্বের অসংখ্য দেশে এই সার্ভিসটি চালু হয়েছে বাংলাদেশের শুরু হয়েছে আপনি নিয়মিত ভিডিও তৈরি করে ইনকাম করতে পারেন।

মোবাইল থাকলে ডেলিভারি ম্যান হয়ে ইনকাম করুন

আপনার যদি একটি বাইসাইকেল কিংবা বাইক থাকে আর একটি স্মার্ট ফোন থাকে তবে বাংলাদেশের জনপ্রিয় ডেলিভারি কিংবা ই-কমার্স সাইট ফুড পান্ডা সহ অনেক ডেলিভারি সংক্রান্ত জব আছে যা পার্ট টাইম কিংবা ফুলটাইম করে আয় করতে পারেন।

অনেক শিক্ষিত ছেলেরা পড়াশোনার পাশাপাশি স্মার্টফোন ব্যবহার করে ডেলিভারি ম্যান হিসেবে কাজ করছেন লোকেশন অনুযায়ী পণ্য কিংবা খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন সঠিক সময়। আর এটি সম্ভব একটি স্মার্ট ফোন থাকলে নতুবা নয়।

বিকাশ থেকে আয় মোবাইল ব্যবহার করে

বিকাশ প্রতিদিনই নতুন নতুন বোনাস অফার করে। তবে অফার গুলো পেতে কিছু রেফার করতে হয় এবং কিছু নিয়ম-নীতি ফলো করতে হয় যা শুধুমাত্র স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরাই সুযোগগুলো লাভ করে। তাই নিয়মিত বিকাশ থেকে আয় করতে বিকাশ অ্যাপস আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটিতে ইন্সটল রাখুন এবং আপডেট খোঁজ রাখুন কাজ করুন আয় করুন।

উপসংহার

অসংখ্য প্ল্যাটফর্ম রয়েছে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। আমরা সেরা উপায় গুলো নিয়ে আলোচনা করেছি আশা করি ভালো লেগেছে আপনার মতামত কমেন্টে লিখুন।

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button