World V. I. P Zone

মিজানুর রহমান আজহারী বায়ো ডাটা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, স্ত্রী, পরিবার এবং পরিবারের ছবি

মিজানুর রহমান আজহারী বাংলাদেশের  অন্যতম শ্রেষ্ঠ ইসলাম প্রচারক, পন্ডিত, শিক্ষাবিদ সমাজ সংস্কারক, গায়ক। ১৯৯০সালের ২৬ জানুয়ারি ঢাকা জেলার ডেমরা থানায় জন্মগ্রহণ করেন। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে  ইসলামিক আলোচনার মধ্য দিয়ে তিনি বর্তমানে অন্যতম শ্রেষ্ঠ আন্তর্জাতিক বক্তা।তিনি মিশরের আল আজহারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। 

মিজানুর রহমান আজহারী সমাজ পরিবর্তন নিয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন বলে সমাজে বিদ্যমান নানা কুসংস্কার দূর করা সহ যুবকদের মনে একজন মডেল। বহুভাষাবিদ মিজানুর রহমান  আজহারী বর্তমানে মালয়েশিয়াতে  অস্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তারুন্যের মধ্যে স্থান দখল করাসহ সমাজ সংস্কারে তার নাম সর্বজন স্বীকৃত। আসুন তাহলে মিজানুর রহমান পরিবার, স্ত্রী, বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নেই।

মিজানুর রহমান আজহারী সংক্ষিপ্ত বায়ো ডাটা

mizanur rahman azhari 1

 

মিজানুর রহমান আজহারী প্রারম্ভিক জীবন

১৯৯০ সালের,২৬ শে জানুয়ারি ঢাকায় জন্মগ্রহণ করলেও তার  পৈত্রিক নিবাস ছিল কুমিল্লার মুরাদনগরের পরমতলা গ্রামে। পিতা একজন মাদ্রাসার শিক্ষক এবং মাতা গৃহিণী । ছোটবেলা থেকেই তিনি মাদ্রাসায় পড়ালেখা করতেন এবং ইন্টারমিডিয়েট পাশ করার পর বৃত্তি পেয়ে মিশরের  আল আজহারী বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হন। সেখান থেকে  একাডেমিক পড়াশুনা শেষে পিএইচডি ডিগ্রি  অর্জন করতে মালেশিয়া যান।

শিক্ষাজীবন

মিজানুর রহমান দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসা থেকে ২০০৪দাখিল এবং ২০০৬ সালে আলিম পরীক্ষায় মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে শীর্ষস্থানীয় স্টুডেন্ট হিসেবে চিহ্নিত হয়।

পরবর্তীতে তিনি শিক্ষা বৃত্তি পেয়ে মিশরের আল আজহারী বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হন ২০০৭ সালে। সেখান থেকে গ্রাজুয়েশন শেষ করে এমফিল এবং পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করার জন্য মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। তার এমফিলের বিষয় ছিল  “হিউম্যান এমব্রায়োলজি ইন দ্য হলি কোরআন” (পবিত্র কুরআনের মানবভ্রূণ বিদ্যা)।

এবং পিএইচডির বিষয় ছিল “হিউম্যান বিহেভিএবল কারেক্টারইসটিকস ইন দা হোলি কুরআন এন্ড অ্যানালিটিক্যাল স্টাডি” (পবিত্র কুরআন ও বিশ্লেষণী গবেষণায় মানব  আচরণগত বৈশিষ্ট্য )।

ব্যক্তিগত জীবন

২০১৪ সালের ২৯ শে জানুয়ারি তিনি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। বর্তমানে তার দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

কর্মজীবন

 ইসলামী সংগীত এবং কেরাত দিয়ে মিজানুর রহমান আজহারী কর্মজীবন শুরু হয়। .২০১৫ সালে তিনি ইসলামিক বক্তা হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন। এছাড়াও, এটিএন বাংলা এবং বৈশাখী টেলিভিশনে ইসলাম ও সুন্দর জীবন শিরোনামে অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন ।

জনপ্রিয়তা

ইসলামিক রহমান আজহারী বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যুবকদের মন আকৃষ্ট করেছেন। বাস্তবতা সরল উদাহরণ এবং বিজ্ঞানভিত্তিক আলোচনার মধ্য দিয়ে সমাজ থেকে কুসংস্কারকে দূর করে ইসলামের প্রতি মনোনিবেশ এবং ইহকালে শান্তি এবং পরকালে মুক্তির প্রতীক্ষায় আলোচনা ব্যক্ত করেন।

সারা বিশ্ব জুড়ে অসংখ্য মানুষ মিজানুর রহমান আজহারীর বক্তৃতায় সন্তুষ্ট হয়েছেন।  দেশ-বিদেশের বিভিন্ন গুনি জনের কাছ থেকে সম্মান পেয়েছেন।

উল্লেখ্য যে,  ২০২০ সালে ভারত থেকে ১২ জন হিন্দু বাংলাদেশি মুসলিম হয়েছেন বলে তিনি সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন। 

মিজানুর রহমান আজহারীর পরিবারের ছবি

mizanur rahman azhari 3

mizanur rahman azhari 4

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button