সমস্যা এবং সমাধান

ই পর্চা ডাউনলোড- e porcha.gov.bd login, খতিয়ান, ই নামজারি আবেদন এবং যাচাই

প্রিয় পাঠক, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীনে ই-পর্চা বর্তমানে নিত্যনৈমিত্তিক অনলাইন নির্ভর নথি । E-Porcha সংগ্রহ করার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট eporcha.gov.bd ।  ভূমি মন্ত্রণালয়ের এই অফিশিয়াল সাইটে প্রবেশ করে খুব সহজেই ভূমি সংক্রান্ত সকল তথ্য জানা যায়। এছাড়াও আপনি www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইটে  ব্রাউজ করে যেকোনো খতিয়ান দেখতে পারবেন। 

আপনি হয়তো জেনে থাকবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনলাইনে সকল ধরনের খতিয়ান বের করার সহজ একটি সেবা চালু করেছেন।  এখন আমরা সহজে কিভাবে ই পর্চা  বের করা  এবং ডাউনলোড করা যায় সে নিয়মসহ  জমিজমা সংক্রান্ত ম্যাপ, খতিয়ান, মৌজা ও অন্যান্য তথ্য আপনাদের সামনে উপস্থাপন করতে চলেছি।

সিএস, এস এ, আরএস, বিএস এই চার ধরনের খতিয়ান সহ সার্টিফাইড কপি ডাউনলোড  এবং জমিজমা সংক্রান্ত সকল সমস্যা সমাধান ইন্টারনেটের মাধ্যমে এখান থেকেই করতে পারবেন।

ই পর্চা কি?

ই-পর্চা অথবা eporcha হচ্ছে এমন একটি নথি যা জমির মালিকানা, দখলদার এবং ভূমি উন্নয়ন করের  সত্যতা নির্ণায়ক ডকুমেন্ট। অর্থাৎ ভূমিজরিপ চূড়ান্ত করার আগে কোন ধরনের করণিক ভুল,  প্রতারণা, সংশোধন, আপিলনামা, এবং ভিত্তিহীন মাঠপর্চা যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত মালিকের  নামে যে ডকুমেন্টারি কাগজ তৈরি করা হয়, তাকেই বলা হয় ই-পর্চা বা সত্যলিপি।

www eporcha gov bd

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এটি। নির্ভুল তথ্য পাওয়ার জন্য এই ওয়েবসাইট ভিজিট করা প্রয়োজন।  অনেকেই দাগ নং এবং খতিয়ান নম্বর দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই করতে চান।

পূর্বে রেকর্ডকৃত জমির খতিয়ান দাগ এবং মালিকানা সহজেই বের করার জন্য আমরা এই www eporcha gov bd  এবং  www eporcha gov bd ওয়েবসাইট দুটি প্রথমে ব্রাউজ করার পরামর্শ দেই।  

ই পর্চা কিভাবে হাতে পাবেন?

প্রিয়  ভিজিটর বন্ধুরা, এখন আমি ই-পর্চা হাতে পাওয়ার সহজ কৌশল বলবো।  তবে তার আগে ই-পর্চা পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করেছেন কিনা অথবা অ্যাপ্লিকেশন আইডি আছে কিনা সেদিকে মনোযোগ দিতে হবে। 

আপনি যদি ইতোমধ্যে  বাংলাদেশ ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক অ্যাপ্লিকেশন আইডিসহ পাসওয়ার্ড  পেয়ে থাকেন তাহলে https://www.eporcha.gov.bd প্রবেশ করে এখনি আপনার কাঙ্খিত ই পর্চা ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

এছাড়াও নির্ভেজালভাবে  ই-পর্চা ডাউনলোড করতে নাম, মোবাইল নম্বর, আবেদনের ধরন, স্থিতি, পরিমাণ এবং পিন নাম্বার সংগ্রহে রেখে নিচের পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করুন। E-porcha  পেমেন্ট করার জন্য ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক  এর মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপস  Upay এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে  হবে। 

eporcha gov bd login (ই পর্চা লগইন)

 

  1. প্রথমে নির্বাচন করুন “Ministry of Land”
  2. লিখুন “E-Porcha Application ID”
  3. তথ্য পরীক্ষা করুন (Name, Mobile No., Application Type, Status, Amount)
  4. লিখুন “PIN”
  5. Slide to confirm.
  6. এরপর আপনার মোবাইল ফোনে একটি রেফারেন্স আইডি ( অর্থপ্রদানের নিশ্চয়তার জন্য) পাবেন।

 বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ রেফারেন্স আইডি এবং পেমেন্ট সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানের জন্য 333 নম্বরে ডায়াল করতে পারেন।

ই-নামজারি আবেদন ফরম- ভূমি মন্ত্রণালয়

যারা এখনো ই-পর্চা  সংগ্রহের ইচ্ছা পোষণ করছেন কিন্তু লগইন মেথড পাননি তারা এখনই অনলাইনে  এপ্লিকেন্ট আইডি সাবমিট করতে পারেন। ই নামজারি আবেদন করার জন্য এখানে

নামজারি আবেদন করার ফরম- ভূমি মন্ত্রণালয়  ক্লিক করুন। নীচের ছবিটি অনুসরণ করে নামজারি আবেদন ফরম পুরণ করে জমা দিন। সর্বশেষ আপনার নির্দিষ্ট মোবাইল নাম্বারে প্রেরিত ভেরিফিকেশন কোড দিয়ে অ্যাপ্লিকেশন আইডি ভেরিফাই করতে হবে।

অনলাইন ই পর্চা

ই-পর্চার জন্য অনলাইনে প্রথমে ভূমি মন্ত্রণালয়ের নাগরিক কর্নারের ই নামজারি অনলাইন আবেদন ফরম পূরণ  করতে হবে।  যে কোন ডিভাইস থেকে নির্ভুলভাবে এখনই ই-পর্চার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। প্রয়োজনে উপরের  সাব হেডিং  এর লেখাগুলো আরেকবার পড়ুন এবং  উল্লেখিত লিংকে ক্লিক করে  আবেদন সম্পন্ন করুন।

নামজারি আবেদন ফরম
নামজারি আবেদন ফরম

ই পর্চা খতিয়ান/ eporcha gov bd khatian যাচাই

  • প্রথমে ভিজিট করুন https://eporcha.gov.bd/khatian-search-panel 
  • বিভাগ নির্বাচনঃ আপনার নিজস্ব বিভাগ এখানে নির্বাচন করতে হবে।
  • জেলা নির্বাচনঃ আপনি কোন জেলার অন্তর্ভুক্ত তা এখানে নির্বাচন করুন।
  • খাতিয়ান টাইপ নির্বাচনঃ আপনি মুলত কোন ধরনের খতিয়ান বের করতে চান তা নির্বাচন করুন।
  • উপজেলা নির্বাচন করুনঃ আপনি কোন উপজেলার অন্তর্ভুক্ত তা এখানে নির্বাচন করুন।
  • মৌজা নির্বাচন করুনঃ আপনার মৌজার নাম কি তা নির্বাচন করুন।
  • খতিয়ান নংঃ আপনি যে জমির খতিয়ামটি বের করতে তা এখানে সিলেক্ট করুন।
  • দাগ নাম্বারঃ যদি আপনার জমির দাগ নাম্বারটি থেকে থাকে তাহলে এখানে সিলেক্ট করুন।
  • মালিকানা নামঃ মালিকানা নাম যদি থাকে তাহলে এখানে মেনশন করুন
  • পিতা/স্বামীর নামঃ পিতা/স্বামীর থাকলে তা এখানে নির্বাচন করুন।
  • ক্যাপচা কোড লিখুনঃ এখানে উল্লিখিত ক্যাপসা কোডটির অনুরুপ ফাঁকা জায়গাতে টাইপ করুন।

সর্বশেষে, উপরোক্ত তথ্য গুলো দিয়ে পুরোন করা হলে অনুসন্ধান অপশনে ক্লিক করুন।

দাগ/ খতিয়ান নাম্বার দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই

দাগ এবং খতিয়ান নাম্বার দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই করতে যে কোন ডিভাইস থেকে  ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট এ প্রবেশ  করতে হবে.  এরপর যথাস্থানে সঠিক তথ্যসহ দাগ নং,  খতিয়ান নং,  জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন এবং মৌজা সিলেক্ট করে জমির মালিকানা বের  করতে হবে ।সানি

E-Porcha Download- সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ

সম্মানিত ভিজিটর বন্ধুরা, আপনারা যেহেতু ইতিমধ্যে আমাদের আর্টিকেল থেকে ই-পর্চার আবেদন,  ভূমি মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ই-পর্চা লগইন করার সিস্টেম, পেমেন্ট ফর্মুলা,  এবং ভূমি সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যা সমাধানের হটলাইন নাম্বারসহ জমি সংক্রান্ত কাগজপত্রের সত্যতা যাচাই প্রক্রিয়া  জেনেছেন তাই নতুন করে বলার কিছু নেই। 

এছাড়াও ই-পর্চা ডাউনলোড করতে অথবা প্রিন্ট দিতে সমস্যা হলে আমাদের পুরো আর্টিকেলটি প্রয়োজনে আরেকবার রিভিশন দিতে পারেন।  

ভূমি সেবার হটলাইন নাম্বার 

বাংলাদেশের নাগরিকগণ ডিজিটালাইজেশনের মধ্যে রয়েছে।  তাই সরাসরি ইউনিয়ন ভূমি অফিস, উপজেলা ভূমি অফিস এবং জেলা অফিস এ সরাসরি পরিষেবা পাওয়ার বিঘ্ন ঘটলে নিচে দেওয়া  হটলাইন নাম্বারে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন।

ভূমি সেবা  পেতে এবং অভিযোগ জানাতে  ডায়াল করুনঃ  ১৬১২২  এবং  +৮৮ ০৯৬১২-৩১৬১২২

অথবা

ভিজিট করুনঃ   land.gov.bd ওয়েবসাইটে.

শেষ কথা,
প্রিয় পাঠক বন্ধুরা, আমরা অনেকেই যেহেতু জমি জায়গা সংক্রান্ত হিসেব নিকেষ, কাগজ পাতির অস্পষ্টতা এবং ভ্যাবাচ্যাকা লেখা বুঝতে পারিনা, তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দক্ষ লোকের সহযোগিতায় জমি জায়গা সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যার সমাধান করা জরুরি। 
তথ্যপ্রযুক্তির ডিজিটাল যুগে মালিক, দখলদার এবং ওয়ারিশগণ মিলে জমির খারিজ, দলিল, ই-পর্চা, এবং খাজনা পরিশোধের বৈধ কাগজপত্রসহ প্রয়োজনীয় নথি অনলাইন ভিত্তিক একটিমাত্র প্লাটফর্মে নিয়ে আসি। শুধু একটি সিকিউরিটি কোড এর মাধ্যমে  ভূমি সংক্রান্ত সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহের সম্ভাবনাই বিলীন করতে পারে– অস্থায়ী সম্পদের লোভ। 

Show More

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।
Back to top button
Close