ভ্রমন

ঢাকা টু রংপুর ট্রেনের সময়সূচী 2022- ভাড়া, ছুটির দিন ও ভাড়ার তালিকা

আপনার ভ্রমণের জন্য জন্য ট্রেন অনেক আনন্দে কারণ ট্রেনে যাতায়াত করলে অন্যান্য যানবাহন এর মত অসুবিধা ভোগ করতে হয় না। আপনার পছন্দের যাতায়াতের জন্য ট্রেনের সময়সূচী আলোচনা করে আপনাদের কাছে কয়েকটি সুরক্ষা টিপস রাখবো । প্রতিদিনের যাতায়াতের জন্য ট্রেনের যাতায়াত স্বচ্ছন্দবোধ মনে করে অধিকাংশ মানুষ ট্রেন সম্পর্কে সঠিক তথ্য খুঁজে থাকে।

আপনি যদি ঢাকা থেকে রংপুর রেল স্টেশন সম্পর্কে সঠিক তথ্য খুঁজে থাকেন তাহলে আপনি এখান থেকে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন। সঠিক সময়ে গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর কারণে এখন মানুষ ট্রেনের দিকে সবচেয়ে বেশি ছুটছে।

ঢাকা টু রংপুর ট্রেনের সময়সূচী :

কমলাপুর স্টেশন থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় রেললাইন সংযোগ আছে। সবচেয়ে ভালো ট্রেন হল আন্তঃনগর ট্রেন। আন্তঃনগর ট্রেন গুলোতে আরামদায়ক এবং বিলাসবহুল ভাবে যাতায়াত করা যায়। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণের জন্য অনেকেই ট্রেনের ভ্রমণ কে বেছে নেয় কারণ দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে ট্রেনে ভ্রমণের ক্লান্তি আসে না।

ঢাকা থেকে রংপুর রেলপথে ৩০৭ কিলোমিটার দূরত্বে একটি ট্রেন চলাচল করে।  আপনি ট্রেনে যাতায়াত করতে চাইলে রংপুর এক্সপ্রেস (৭৭১) ট্রেনটিতে যাতায়াত করতে পারবেন। এই ট্রেনটি নির্দিষ্ট সময়ে চলাচল করায় যাত্রীদের অনেক সময় সাশ্রয় হয়। নির্দিষ্ট সময়ে টিকিট সংগ্রহ করে যাতায়াত করে সুবর্ণ সুযোগ গ্রহণ করতে পারবেন। ট্রেনে যাতায়াত করে ট্রেন দুর্ঘটনার পর অনেক কম থাকে।

সঠিক সময়ে ট্রেন ছেড়ে দেওয়া হয় এবং গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর জন্য নির্দিষ্ট সময় রয়েছে। ট্রেনটি প্রতি সপ্তাহের একটি নির্দিষ্ট দিন বন্ধ থাকে। আপনি যদি ট্রেনে যাতায়াত করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী সম্পর্কে সঠিক ধারণা নিতে হবে।ট্রেনটি ঢাকা স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার সময় এবং গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর সময় তুলে ধরা হলো-

ট্রেনের নাম ছুটির দিন ছাড়ায় সময় পৌছানোর সময়
রংপুর এক্সপ্রেস(৭৭১) সোমবার ০৯ঃ১০ ১৯ঃ০৫

ঢাকা টু রংপুর ট্রেনের টিকিটের মূল্য (ভাড়া):

ঢাকা থেকে রংপুর রেল পথে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি নিয়মিত যাতায়াত করে। তাই যাত্রীরা সঠিক সময় যাতায়াত করতে কোন অসুবিধা অনুভব করে না। বিভিন্ন আসন ব্যবস্থায় বাসের তুলনায় অনেক কম ভাড়ায় যাত্রীদের যাতায়াতের সেবার ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিটি আসন ব্যবস্থা টিকিটের স্বল্পমূল্যে মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষ যাতায়াত সুবিধা ভোগ করতে পারেন।

ট্রেনগুলোর আসন ভিন্ন থাকায় আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী আসন বুকিং করে যেতে পারবেন। তবে শোভন আসন থেকে অন্যান্য আসনগুলোর ভাড়া আলাদা। বাংলাদেশ রেলওয়ের দ্বারা এসি আসনে যাতায়াতের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এখানে ভিন্ন ভিন্ন আসন ব্যবস্থার টিকিটের মূল্য জানতে চাইলে আপনি অবশ্যই তালিকাটি দেখে নিন। নিচে ট্রেনের নাম,বিভিন্ন আসনের টিকিটের মূল্য উল্লেখ করা হলো-

আসন বিভাগ টিকেটের মূল্য
শোভন চিয়ার ৫০৫ টাকা
স্নিগ্ধ ৯৬৬ টাকা
এসি ১১৬২ টাকা

Show More

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।
Back to top button
Close