রোমান্টিক কালেকশন

কাউকে পাবেনা জেনেও ভালোবাসলে কি করা উচিত?

কাউকে পাবে না সেটা জেনেও যদি তাকে আমরা ভালোবেসে ফেলি তাহলে সেই সময় আমাদের কি করা উচিত এবং এই প্রশ্নটা কি আমি খুব ইম্পর্টেন্ট একটা প্রশ্ন বলে মানি।  শুধুমাত্র যারা এই সমস্যাটা এখন ফেস করছেন বা আগে শেষ করে এসেছেন  তাদের জন্য  এই আর্টিকেলটি। তার কারণ আমাদের প্রত্যেকটা মানুষের জীবনে কখনো না কখনো প্রেম এসেছে এবং সবসময় এমন না যে, তুমি কাউকে ভালবেসেছ, কাউকে চেয়েও তোমাকে উল্টোদিক থেকে নানা অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে। এগুলি বাস্তব কাহিনী । ব্যর্থ প্রেমের কাহিনী এবং বাস্তব প্রেমের কাহিনী থেকে অনেক বেশি  এনার্জি সম্পন্ন।

ব্যর্থ প্রেমের সফল প্রেমিক গুলো উপন্যাস এবং গল্পের মধ্যে যতটা ভালো লাগে, রিয়েল লাইফে কিন্তু ততটাই ইমোশনালফুল । একটা ব্যাপার মানুষ মারাত্মক রকম ডিপ্রেশন, ফাস্টেশন নিয়ে থাকার কারণে এর সমস্যা দেখা যায়।  এ ধরনের সমস্যার জন্য যারা এই প্রবলেমটা  রিয়েল  লাইফে এই মুহূর্তে ফেস  করছেন এবং ভাবছেন তারা পুরো আর্টিকেলটি পড়ার চেষ্টা করুন।

আমি রিকমেন্ড করব  আপনার চেনা জানা প্রচুর বন্ধু-বান্ধব বাচ্চাকাচ্চা আছে যারা এই ধরনের সমস্যায় পড়তে চলেছে অলরেডি রয়েছে, তাদেরকে আপনি এই কথাগুলো বলতে পারবেন  অথবা এই  আর্টিকেলটি শেয়ার করে দিতে পারবেন এবং তাকে বাঁচাতে পারবেন।

 একটা ভয়ানক বিপদের হাত থেকে তাকে বাঁচাতে পারবেন।  তার কারণ এই সমস্যাটা ফার্মের জন্য মানুষকে কাঁদিয়ে চলে গেলেও  কর্মের জন্য প্রচুর মানুষের জীবনে একটা ভয়ানক  ব্যধিতে ফেলে দিয়ে চলে যায়। সেখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। কাজেই,  এখন আমরা নেক্সট লেভেল এগিয়ে আন্ডারস্ট্যান্ডিং লেভেলে গিয়ে এই প্রবলেমটার সোলিউশন বের করবার চেষ্টা করবো সাথে থাকুন। 

প্রশ্নের মধ্যে উত্তর আছে কাউকেই পাব না তা সত্ত্বেও ভালোবাসি।   আপনি যখন কাউকে পাবেন নাতা জেনেও অন্তরকে কষ্ট দিচ্ছেন বা আফসোস করছেন যে তাকে পেলে জীবনে বেশ ভাল হতো এই কনসেপ্ট  আপনাকে তিলে তিলে শেষ করে দিচ্ছে। সুতরাং আপনি ইমোশনাল এর প্রতি ধাবিত হচ্ছেন।  বর্তমানে ইমোশনাল খুব বেশি কাজে লাগে না।

ইমোশনাল অ্যাডিকশন হচ্ছে never-ending প্রসেস।  আপনি ভাবছেন যে, মানুষটা আমার জীবনে থাকলে আমার জীবন কতটা সুন্দর  হত।  এই এডিকশনটা  ইমাজিনারি ওয়ার্ল্ড থেকে বিদায় করেন।

এটা মূলত একটি জুয়া খেলার মত। প্রত্যেকে ভাবে যে আমি এত টাকা পাবো কিন্তু তারা এটা ভাবেনা  যে,  গেমটি হারলে তা কত টাকা লস হবে। কোনটা রিয়েল আর কোনটা ইমাজিনেশন এই দু’জনের মধ্যে পার্থক্যটা বুঝতে হবে । 

আপনি যেটাকে ভালোবাসা  বলছেন ওটা কে যদি ভালবাসার মত নতুন অবসেশন বলো তাহলে আরো বেটার হয়।  তার কারণ  আপনার অক্সিডেশন হয়ে গেছে ঠিক যেরকম ভাবে একটা দামী মোবাইল কেনার সামর্থ্য না থাকলেও তাকে না আকাঙ্ক্ষা। 

আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় এমন ভুল ডিসিশান নেওয়া যেগুলো যেগুলো প্রভাব আমাদের ভবিষ্যৎ জীবনের পড়ে। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আপনি নিজেকে কতটা ভালবেসেছেন, কারন  আপনি যদি নিজেকে যথেষ্ট ভালবাসতে না পারেন তাহলে অন্যকে কিভাবে ভালবাসবেন। ভালোবাসার মানুষটিকে পাবেন না জেনেও নিজেকে কষ্ট দিচ্ছেন। এটাই হচ্ছে জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল। 

একটা মানুষকে পাওয়ার পেছনে যদি এত সময় এবং ভাবনা ব্যয় করেন তা যদি আপনার লাইফের ছোট ছোট কর্মক্ষেত্রেও ইনভেস্ট করতেন তাহলে আজ হয়তো জীবনে  আপনি আজ এই জায়গায় রয়েছেন তার থেকেও উপরে থাকতেন।   

সবার আগে নিজের মনোভাব এবং কনফিডেন্স শক্ত করা দরকার। সঠিক সময়ে সঠিক ডিসিশন নিতে পারলে সব কিছুই পজিটিভ। নিজেকে সীমাবদ্ধতার মধ্যে না রেখে বিষয় রাখতে হবে যে তাকে ছাড়াও লাইফে ভালো কিছু ঘটবে।  অথবা তাকে পাওয়ার জন্য প্রানপন চেষ্টা করতে হবে।

এমনও হতে পারে ওই মানুষটার থেকেও বেশি  জীবনে এমন একজন সঙ্গী পাবেন  যিনি ওই মানুষটার থেকেও  আপনার আরো বেশি ভালবাসতে পারে।  ভবিষ্যতে এমন কারো সাথে দেখা হতেই পারে যাতে  আপনি আরো বেশি ভালোবাসবেন। 

সর্বশেষ বলতে  চাইছি যে, জীবনে যাকে পাবনা তাকে নিয়ে অহেতুক সময় নষ্ট করে নিজেকে কষ্ট দিয়ে কোন লাভ নেই।  জীবন অল্প সময়ের জন্য। তার কথা ভেবে এক মিনিট সময় নষ্ট করলেও তা আপনার জন্য ক্ষতি। এছাড়াও ইমোশনাল ভালোবাসা যেহেতু চিনি ছাড়া চায়ের মত তাই বাদ দিন সেইসব ভালোবাসার গল্প। 

 

মোঃ জাহিদুল ইসলাম

আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম । 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button